ফুলগাজী প্রতিনিধি->>

ফেনীর ফুলগাজী-পরশুরাম আঞ্চলিক পাকা সড়ক হালকা বৃষ্টিতে মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে। ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় নেয়ার সময় সড়কে পড়ে থাকা মাটি বৃষ্টিতে ভিজে পিচ্ছিল হয়ে পড়ছে। ফলে সড়ক দিয়ে যানবাহন চলছে মারাত্মক দুর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়ে। বাড়ছে প্রাণহানীর শংকা। বুধবার সারাদিন এমনই চিত্র দেখা গেছে আঞ্চলিক এ সড়ক জুড়ে।

সরেজমিনে জানা যায়, ফুলগাজী থেকে পরশুরাম সড়কের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে ইটের ভাটা। ফসলি জমি হতে মাটি কেটে ইটভাটায় সরবরাহ করা হচ্ছে। পরিবহনের সময় রাস্তায় পড়ে থাকা মাটি বৃষ্টিতে পিচ্ছিল হয়ে ভয়ানক পরিস্থিতি তৈরী করেছে। রাস্তায় এরই মধ্যে কয়েকটি যানবাহনও দুর্ঘটনায় পতিত হয়েছে। একটি ট্রাক পিচ্ছিল রাস্তার পাশে গাছে আটকা পড়েছে। এছাড়া আরও একটি পিকআপ দুর্ঘটনায় পতিত হয়েছে।

ওই সকলে চলাচলরত জসিম উদ্দিন নামে এক পথচারী বলেন, ইটভাটায় মাটি নেয়ার সময় সড়কে মাটি পড়ে ছিলো। অসময়ের বৃষ্টিতে মাটির কাঁদা পানির সৃষ্টি হওয়ায় সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে পথচারীদের নানা রকম সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।

ভুক্তভোগী একাধিক পথচারী বলেন, সকাল থেকেই গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হওয়ায় পরশুরামের প্রতিটি সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন। সড়কে সকাল থেকে কয়েকজন মোটরসাইকেল চালকসহ পথচারী আহত হয়েছে।

পরশুরাম সিএনজি অটোরিকশা মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম বাদল বলেন, বৃষ্টির কারণে সড়ক পিচ্ছিল হয়ে পড়ায় গাড়ি চালানো কষ্টকর হয়ে পড়েছে। চালকরা ঝুঁকি নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছি।

বক্সমাহমুদ ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘আমার এলাকায় খন্ডলে ২টা, প্রীতি ও সততা ৪টা ব্রিক ফিল্ড রয়েছে। এসব ব্রিক ফিল্ডগুলো এলাকা হতে অবৈধভাবে মাটি কেটে নিচ্ছে। মাটি পরিবহনের সময় পড়ে বৃষ্টিতে পিচ্ছিল হয়ে সড়কের মারাত্মক আকার ধারন করেছে। গুথুমা থেকে বক্সমাহমুদগামী রাস্তা, তালতলা হতে খন্ডল হাই স্কুলের রাস্তার বেহাল দশা। এসব সড়কে ৮/১০ চাকার বড় বড় গাড়ি চলে। রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি পোহাতে হয়।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন মজুমদার বলেন, মূলত কৃষি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় নেয়ার সময় পিকআপ হতে রাস্তায় পড়ে এ অবস্থা হয়েছে। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

Sharing is caring!