বিশেষ প্রতিনিধি->>
কারাবিধি না মানার অভিযোগে ফেনীর জেল সুপার রফিকুল কাদেরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার কারা মহাপরিদর্শকের (আইজি প্রিজন) থেকে অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্ণেল মোঃ আবরার হোসেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাকে তাৎক্ষণিক কারা অধিদপ্তর ঢাকায় যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়।
নোটিশে বলা হয়,পূন আদেশ না দেয়া পর্যন্ত ফেনী কারাগারের কারা তত্বাবধায়ক রফিকুল কাদেরকে জনস্বার্থে কারা আধিদপ্তর ঢাকায় সংযুক্ত করা হলো।পাশাপাশি তাৎক্ষণিক ফেনী থেকে কর্মমুক্ত হয়ে নতুন কর্মস্থলে যোগদানের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়।এবং তার চাকরীরির বেতন ভাতাদি ফেনী জেলা কারাগারের আনুকুলে উত্তোলিত হবে।
উল্লেখ্য গত বছরের ৯ ডিসেম্বর একটি দৈনিক পত্রিকায় ”আইন ভেঙ্গে প্রায় জেলে ঢুকেন সাংসদ হাজারী’’ এই শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে।সেখানে উল্লেখ করা হয় ফেনী কারাগারের নিরাপত্তা সেলে ঢুকে যুবলীগের দুই নেতাকে হুমকি দেওয়ার ঘটনা অনুসন্ধান করতে গিয়ে তদন্ত কমিটি ভয়ংকর তথ্য পেয়েছে। তা হলো, সাংসদ নিজাম হাজারী আইন লঙ্ঘন করে নিয়মিত কারাগারে যেতেন।এবং সাংসদকে কারাগারের ভেতরে নিয়ে যেতেন জেল সুপার।

সেসময় জেলে থাকা ফেনী জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি এম আজহারুল হক ও জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া গত ৯ জুলাই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রসচিবের (সেবা সুরক্ষা বিভাগ) কাছে অভিযোগ করেন, তাঁদের ফেনী কারাগারে নিরাপত্তা সেলের ৩ নম্বর কক্ষে রেখে সাংসদসহ তার লোকজন সেখানে ঢুকে তাঁদের হুমকি দিয়েছেন।তদন্ত কমিটিকে একজন সাক্ষী বলেছেন, সাংসদ তাঁর দেহরক্ষী সাহাবুদ্দিন ও ফুলগাজীর আনন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান হারুন মজুমদারকে নিয়ে কারাগারের ভেতরে গেছেন।
পরে ১০ ডিসেম্বর একই পত্রিকায় আরেকটি শিরোনাম হয় ’’হাজারীকে কারাবিধি মানার ‘পরামর্শ’, জেল সুপারকে ‘সতর্ক’ সেখানে উল্লেখ করা হয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ দেয়া হয় সাংসদ নিজাম হাজারীকে ভবিষ্যতে কারাবিধি সুনির্দিষ্টভাবে অনুসরণ করে কারাগার পরিদর্শনের জন্য।এবং জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (ডিসি)তাকে এ ‘পরামর্শ’ দিতে নির্দেশ দেয়া হয় ।পরে আজ এ নির্দেশ আসে।

Sharing is caring!