নিজস্ব প্রতিনিধি->>
প্রেমিকাকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে মনিরুল ইসলাম তারেক (১৯) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। শনিবার দুপুরে গ্রেফতার মনিরুল ইসলাম তারেককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে এবং আদালতে ওই ছাত্রীর জবানবন্দী রেকর্ড করে তাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার তারেক রামপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ওয়াতী ভূঁইয়া বাড়ির নজরুল ইসলাম প্রকাশ খান সাহেবের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফাজিল প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল তারেকের। গত ২৩ জানুয়ারি মেয়েটিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে
বাড়ি থেকে ফেনী নিয়ে যায় তারেক। পরে তারা ফেনীর একটি আবাসিক হোটেলে ওঠে।

পুলিশ জানায়, ছাত্রীটি অপহরণ হয়েছে বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে শুক্রবার কোম্পানীগঞ্জ থানায় মৌখিক অভিযোগ করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার রাত ৯টার দিকে ফেনীর একটি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ছাত্রীটিকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত মনিরুল ইসলাম তারেককে গ্রেফতার করা হয়। পরে ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে তারেক ও তার সহযোগীদের আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ জানুয়ারি ছাত্রীটি মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে তারেকের বন্ধু নাহিদের সহযোগিতায় তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে ফেনীর একটি আবাসিক হোটেলে আটকে রেখে বিয়ের প্রলোভনে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রবিউল হক জানান, মেয়েটির পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলার প্রধান আসামি তারেককে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!