ঢাকা অফিস->>
টঙ্গীর তুরাগ তীরে ইতোমধ্যে বিশ্ব ইজতেমায় জড়ো হয়েছেন মুসল্লিরা। আম বয়ানের মধ্য দিয়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে প্রথম পর্বের ইজতেমা।
সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মাওলানা যোবায়েরের অনুসারীরা ইজতেমায় পালন করবেন ১০, ১১ ও ১২ জানুয়ারি। আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ১২ জানুয়ারি (রোববার) শেষ হবে প্রথম পর্বের ইজতেমা।
জানা গেছে, ইজতেমার প্রথম পর্বে দেশের ৬৪ জেলার মুসল্লিদের জন্য ময়দানকে ৮৭টি খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। পাঁচটি অতিরিক্ত খিত্তা রিজার্ভ রাখা হয়েছে। মাদরাসার ছাত্র অথবা কোনও জেলার মুসল্লি বেশি হলে সে সব খিত্তায় তাদের বসার ব্যবস্থা করা হবে।

ইজতেমার এই পর্বে মুসল্লিরা যে সব খিত্তায় থাকবেন:
১ নম্বর খিত্তায় গাজীপুর
২ নম্বর খিত্তায় টঙ্গী-১
৩ নম্বর খিত্তায় টঙ্গী-২
৪ নম্বর খিত্তায় টঙ্গী-৩
৫ নম্বর খিত্তায় মিরপুর-১
৬ নম্বর খিত্তায় মিরপুর-২
৭ নম্বর খিত্তায় সাভার-১
৮ নম্বর খিত্তায় সাভার-২
৯ নম্বর খিত্তায় মোহাম্মদপুর
১০ নম্বর খিত্তায় কারকরাইল-৩
১১ নম্বর খিত্তায় কেরানীগঞ্জ-১
১২ নম্বর খিত্তায় কেরানীগঞ্জ-২
১৩ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-১
১৪ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-২
১৫ (ক) খিত্তায় ডেমরা
১৫ (খ) খিত্তায় (সংরক্ষিত খিত্তা)
১৬ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-৪
১৭ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-৫
১৮ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-৬
১৯ নম্বর খিত্তায় কাকরাইল-৭
২০ নম্বর খিত্তায় রাজশাহী
২১ নম্বর খিত্তায় নওগাঁ
২২ নম্বর খিত্তায় নাটোর
২৩ নম্বর খিত্তায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ
২৪ নম্বর খিত্তায় যাত্রাবাড়ী-২
২৫ নম্বর খিত্তায় যাত্রাবাড়ী-১
২৬ নম্বর খিত্তায় সিরাজগঞ্জ
২৭ নম্বর খিত্তায় দোহার
২৮ নম্বর খিত্তায় নবাবগঞ্জ
২৯ নম্বর খিত্তায় মানিকগঞ্জ
৩০ নম্বর খিত্তায় টাঙ্গাইল
৩১ নম্বর খিত্তায় নড়াইল
৩২ নম্বর খিত্তায় ধামরাই
৩৩ নম্বর খিত্তায় রংপুর
৩৪ নম্বর খিত্তায় নীলফামারী
৩৫ নম্বর খিত্তায় কুড়িগ্রাম
৩৬ নম্বর খিত্তায় লালমনিরহাট
৩৭ নম্বর খিত্তায় গাইবান্ধা
৩৮ নম্বর খিত্তায় মুন্সীগঞ্জ
৩৯ নম্বর খিত্তায় মাগুরা
৪০ নম্বর খিত্তায় ঝিনাইদহ
৪১ নম্বর খিত্তায় বগুড়া
৪২ নম্বর খিত্তায় নারায়ণগঞ্জ
৪৩ নম্বর খিত্তায় ফরিদপুর
৪৪ নম্বর খিত্তায় যশোর
৪৫ নম্বর খিত্তায় সাতক্ষীরা
৪৬ নম্বর খিত্তায় বাগেরহাট
৪৭ নম্বর খিত্তায় নরসিংদী
৪৮ নম্বর খিত্তায় ভোলা
৪৯ নম্বর খিত্তায় জামালপুর
৫০ নম্বর খিত্তায় ময়মনসিংহ-১
৫১ নম্বর খিত্তায় ময়মনসিংহ-২
৫২ নম্বর খিত্তায় মেহেরপুর
৫৩ নম্বর খিত্তায় চুয়াডাঙ্গা
৫৪ নম্বর খিত্তায় নেত্রকোনা
৫৫ নম্বর খিত্তায় কিশোরগঞ্জ
৫৬ নম্বর খিত্তায় গোপালগঞ্জ
৫৭ নম্বর খিত্তায় বরিশাল
৫৮ নম্বর খিত্তায় রাজবাড়ি
৫৯ নম্বর খিত্তায় শেরপুর
৬০ নম্বর খিত্তায় শরিয়তপুর
৬১ নম্বর খিত্তায় মাদারীপুর
৬২ নম্বর খিত্তায় সিলেট
৬৩ নম্বর খিত্তায় কক্সবাজার
৬৪ নম্বর খিত্তায় রাঙ্গামাটি
৬৫ নম্বর খিত্তায় খাগরাছড়ি
৬৬ নম্বর খিত্তায় বান্দরবান
৬৭ নম্বর খিত্তায় ফেনী
৬৮ নম্বর খিত্তায় নোয়াখালী
৬৯ নম্বর খিত্তায় লক্ষীপুর
৭০ নম্বর খিত্তায় চাঁদপুর
৭১ নম্বর খিত্তায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া
৭২ নম্বর খিত্তায় খুলনা
৭৩ নম্বর খিত্তায় পটুয়াখালী
৭৪ নম্বর খিত্তায় বরগুনা
৭৫ নম্বর খিত্তায় চট্টগ্রাম
৭৬ নম্বর খিত্তায় কুমিল্লা
৭৭ নম্বর খিত্তায় পিরোজপুর
৭৮ নম্বর খিত্তায় ঝালকাঠি
৭৯ নম্বর খিত্তায় সুনামগঞ্জ
৮০ নম্বর খিত্তায় হবিগঞ্জ
৮১ নম্বর খিত্তায় মৌলভীবাজার
৮২ নম্বর খিত্তায় পাবনা
৮৩ নম্বর খিত্তায় ঠাকুরগাঁও
৮৪ নম্বর খিত্তায় পঞ্চগড়
৮৫ নম্বর খিত্তায় দিনাজপুর
৮৬ নম্বর খিত্তায় জয়পুরহাট
৮৭ নম্বর খিত্তায় কুষ্টিয়া এবং
৮৮-৯২ নম্বর খিত্তা সংরক্ষিত থাকবে।
প্রসঙ্গত, চারদিন বিরতি দিয়ে সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা ইজতেমা পালন করবেন ১৭, ১৮ ও ১৯ জানুয়ারি। আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ১৯ জানুয়ারি (রবিবার) সমাপ্তি ঘটবে ২০২০ সালের ৫৭তম বিশ্ব ইজতেমা।

Sharing is caring!