ডেক্স রিপোর্ট->>
বাংলাদেশি নাগরিককে বিয়ে করে বিদেশিদের ভোটার হওয়ার প্রবণতা রোধে মাঠ কর্মকর্তাদের সতর্ক করেছে নির্বাচন কমিশন। এক্ষেত্রে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ও ভোটার তালিকা আইন অনুসরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সব উপজেলা/থানা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

সম্প্রতি ফেনী সদর উপজেলায় এক চীনা নাগরিকের (আয়েশা জোয়াং জিং আক্তার) বাংলাদেশের ভোটার হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ার পর এমন নির্দেশনা দিল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে মামলাও করা হয়েছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, বিয়ে করে বিদেশি নাগরিকের বাংলাদেশে ভোটার হতে হলে তাকে এদেশে অন্তত চার বছর থাকতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট দেশের নাগরিকত্ব ছেড়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব নিতে হবে। তবেই ভোটার হওয়া সম্ভব। সেক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখেই ভোটার করার জন্য বলা হয়েছে কর্মকর্তাদের।

বৈবাহিক সূত্রে বাংলাদেশের নাগরিকের ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার বিষয়ে বৃহস্পতিবার মাঠ পর্যায়ে ইসির নির্দেশনা দেওয়া হয়।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের সহকারী পরিচালক (বৈধ ও সঠিকতা যাচাইকরণ) মুহা. সরওয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় বলা হয়, ছবিসহ ভোটার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে বিদেশি কোনো নাগরিক (পুরুষ/মহিলা) বাংলাদেশের কোনো নাগরিকের (পুরুষ/মহিলা) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলে তার বাংলাদেশি নাগরিত্ব লাভের ক্ষেত্রে নিম্নরূপ বিধানাবলী প্রযোজ্য হবে-

বৈবাহিক সূত্রে নাগরিকত্ব পাওয়ার ক্ষেত্রে দেশে চার বছর বসবাস করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে, বৈবাহিক সূত্রে বাংলাদেশি নাগরিত্ব প্রাপ্তির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগে আবেদন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে শর্ত থাকে যে, আবেদনকারীকে এফিডেফিটের মাধ্যমে নিজ দেশের নাগরিকত্ব ছাড়তে হবে। আবেদনকারী এফিডেফিটের মাধ্যমে নিজ দেশের নাগরিকত্ব পরিত্যাগ না করেন তবে তিনি বাংলাদেশের নাগরিকত্ব লাভের জন্য অযোগ্য হবেন।

ভোটার তালিকা আইন, ২০০৯ এর ধারা ৭ এর (ক) অনুসারে ছবিসহ ভোটার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

এমতাবস্থায় মাঠপর্যায়ে বৈবাহিক সূত্রে কোনো বিদেশি নাগরিককে (পুরুষ/মহিলা) ভোটার হিসেবে নিবন্ধনের ক্ষেত্রে অবশ্যই তাকে তার নিজ দেশের নাগরিকত্ব পরিত্যাগের প্রমাণ হিসেবে এফিডেফিট (সুরক্ষা সেবা বিভাগ কর্তৃক অনুমোদিত) দাখিল করতে হবে।

এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে সতর্কতার সাথে প্রযোজনীয় কার্যক্রম নিতে বলা হয়েছে নির্বাচন কর্মকর্তাদের।

সূত্র বিডিনিউজ

Sharing is caring!