শহর প্রতিনিধি->>
ফেনীতে জাল কাগজপত্র দিয়ে ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার অভিযোগে সেই চীনা নারীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে নির্বাচন কমিশন।
সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম জানান, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরফোজা পারভীন বৃহস্পতিবার তাদের থানায় এই মামলা করেন।

প্রবাসে এক বাংলাদেশিকে বিয়ে করে ফেনীতে আসা চীনা নারী ‘আয়েশা জোয়াং জিং আক্তার’ নামে ভুয়া কাগজ দেখিয়ে ভোটার তালিকাভুক্ত হন ২০১৪ সালে।

সম্প্রতি জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়লে তার নাম তালিকা থেকে বাদ দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র বাতিল করা হয়।

মামলায় তার নাম লেখা হয়েছে ‘জোয়াং জিং ওরফে আয়েশা জোয়াং জিং আক্তার’, বাবা জোহাং জহি, মা ডাই হোয়াই কিং, স্বামী মায়দুল হক। বর্তমান ঠিকানা: বারাহিপুর, ওয়ার্ড ৯, ফেনী পৌরসভা, ফেনী। স্থায়ী ঠিকানা গ্রাম কৌশল্যা, ডাকঘর দরবেশেরহাট, ইউনিয়ন সিন্দুরপুর, উপজেলা দাগনভূঁইয়া, জেলা-ফেনী।

ফেনী সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরফোজা পারভীন বলেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে ভোটার তালিকা আইন ২০০৯-এর ১৮ ধারা অনুযায়ী এই চীনা নারীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

“চীনা নারী ছাড়াও ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে সহায়তার অভিযোগে নাগরিক সনদ ও জন্ম সনদ ইস্যুকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনাপত্তিপত্র দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত থাকায় ফুলগাজী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মো. আব্দুল জব্বারের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে বিভাগীয় মামলা হবে।”

তবে এই চীনা নারী বর্তমানে কোথায় আছেন সে বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারেননি।

তিনি বলেন, “তার যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি স্বামী বছরখানেক আগে দেশে এসেছিলেন। তারা দুইজনই প্রবাসী।’’

ফেনী সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম বলেন, মামলা দায়েরের পরই তা তদন্ত করার জন্য থানার এসআই রাশেদুল হককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Sharing is caring!