সোনাগাজী প্রতিনিধি->>

সোনাগাজীতে উপজেলা পরিষদের কম্পাউন্ডে আরাফা আক্তার নামে এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাকে মাইক্রোবাস চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে উপজেলা পরিষদ কম্পাউন্ডেের হিসাব রক্ষণ অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে। সে সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের মনগাজী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা এবং পশ্চিম সুজাপুর গ্রামের মহি উদ্দিন হাজী বাড়ির আবদুল আউয়ালের কন্যা। এ ঘটনায় মাইক্রোবাস চালকের দুই সহযোগি ছালেহ আহম্মদ ও আলতাফ হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্তের পরিবার জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা নাজমা আক্তার সহ আরাফা আক্তার বেতন তুলতে উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিসে যান। অফিসের সামনে পৌঁছামাত্র হঠাৎ বেপরোয়া গতির একটি মাইক্রোবাস (ঢাকা-মেট্রো-চ-১৩-৫৪১০) দুই জনকে লক্ষ্য করে চাপা দেয়। এসময় সহকারি শিক্ষিকা আরাফার বাম পা গাড়ির চাকার নিচে পৃষ্ঠ হয়ে গুরুতর আহত হয়। প্রধান শিক্ষিকা ছিটকে পড়ে আত্মরক্ষা পান। তাকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় গাড়ির চালকের দুই সহযোগি সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের ছাড়াইতকান্দি গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে ছালেহ আহম্মদ এবং পৌর এলাকার মধ্যম তুলাতলি গ্রামের আবুল কাসেমের ছেলে আলতাফ হোসেনকে আটক করেছে।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। আহত শিক্ষিকার পিতা আবদুল আউয়াল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ব্যপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Sharing is caring!