ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি->>

ছাগলনাইয়ার ঘোপালে গুলিবিদ্ধ হয়ে যুবলীগ কর্মী সিরাজুল ইসলাম নামে ওমান প্রবাসী নিহত হওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে নিহত সিরাজুলের বাবা বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে নজরুল ইসলাম (২৮) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার নজরুল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আজিজুল হক মানিকের সমর্থক হিসেবে পরিচিত।
এ ঘটনার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে মিছিল করেছে এলাকাবাসী। এনিয়ে এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সোমবার সিরাজের পরিবাবের প্রতি সমবেদনা জানাতে তার বাড়ি যান ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য শিরীন আখতার। এসময় তিনি সিরাজ হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতারে প্রশাসনকে নির্দেশ দেন।
এর আগে সোমবার দুপুরে ফেনী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে সিরাজুলের মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে ওইদিন সন্ধ্যায় নিজকুঞ্জরা গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মো. আবু তাহের পাটোয়ারী জানান, ময়নাতদন্তকালে নিহতের বুকের ডান পাশে একটি গুলি পাওয়া গেছে।
ছাগলনাইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, পুলিশ ওই সংঘর্ষ ও হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নজরুল ইসলাম (২৮) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে। তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

গত রোববার বিকেলে ছাগলনাইয়া উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের নিজকুঞ্জরা সমিতির বাজার এলাকায় বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলিতে সিরাজুল ইসলাম নিহত হন। এ ঘটনায় আরও ৫জন গুরুতর আহত হয়।

Sharing is caring!