নিজস্ব প্রতিনিধি->>
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিব বর্ষ’ পালনের লক্ষে বছরব্যাপী কর্মসূচি পুস্তক আকারে প্রকাশ করেছে ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ। রবিবার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রকাশিত কর্মসূচির পুস্তিকাটির মোড়ক উম্মেচন করা হয়েছে।
দুপুরে শহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ফেনী-২ আসনের ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী।
সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি করিম উল্লাহ বিকমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীলের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এডভোকেট আকরামুজ্জামান।

সভায় বক্তব্য রাখেন ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম, ফেনী পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আইনুল কবির শামীম, ছাগলনাইয়ায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, পরশুরাম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল মজুমদার, ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আনন্দপুর ইউপি চেয়ারম্যান হারুন মজুমদার, সোনাগাজী পৌর মেয়র এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন, সোনাগাজী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেন, রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণে। যদি কল্যাণ না হয় তবে রাজনীতির কোন মূল্য নেই। তিনি এ ব্যতিক্রমী আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ অত্যন্ত চমৎকার একটি আয়োজন করেছে।

সভায় আগামী ২০২০ সাল ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের লক্ষ্যে কর্মসূচির পুস্তিকাটির মোড়ক উম্মেচন করা হয়েছে।

পুস্তিকায় জানা যায়, আগামী ২০২০ সালের জানুয়ারীতে ৭টি কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। মাসের প্রথম দিনের কর্মসূচিতে রয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণে অংশগ্রহণ। ফেব্রুয়ারীতে ৬টি কর্মসূচি রয়েছে। ২-১৫ ফেব্রুয়ারীর কর্মসূচীতে রয়েছে সকল ইউনিয়নে মহিলা আওয়ামী লীগের কর্মীসভা।
মার্চে ১১ টি কর্মসূচি রয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে আলোচনা সভা, কেক কাটা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। এছাড়া মাসের শেষ দিনে রয়েছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। এপ্রিলে রয়েছে ৫টি কর্মসুচি। কর্মসূচির মধ্যে ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা রয়েছে।
মে’তে রয়েছে ৬টি কর্মসূচি। তার মধ্যে রয়েছে ২৮ মে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির সভা আহ্বান। জুনে ৫টি কর্মসুচি রয়েছে। ১-১২ জুন কর্মসূচিতে রয়েছে প্রতিটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভা আহ্বান।

জুলাইয়ে রয়েছে ৪টি কর্মসূচি। ৬ জুলাই যুব মহিলা লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপনের কর্মসূচি রয়েছে। আগস্টে রয়েছে ৭টি কর্মসূচি। এর মধ্যে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকীতে প্রতিটি ওয়ার্ডে আলোচনা সভা, মসজিদ মিলাদ মাহফিল ও মন্দিরে প্রার্থনা সভা আয়োজনের কর্মসূচি রয়েছে।
সেপ্টেম্বরে ৫টি কর্মসূচি রয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ২১-২৫ সেপ্টেম্বর প্রতিটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভা। অক্টোবরে রয়েছে ৬টি কর্মসূচী। ১৪-২০ অক্টোবর প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভা কর্মসূচিতে রয়েছে।
নভেম্বরে রয়েছে ৪টি কর্মসূচি। এর মধ্যে ১৫-২৮ নভেম্বর প্রতিটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপির জনসভার কর্মসূচি রয়েছে। ডিসেম্বর রয়েছে ৯টি কর্মসূচি। কর্মসূচিতে রয়েছে ১৬ ডিসেম্বর প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন।
সভায় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!