নিজস্ব প্রতিবেদক->>
২০২০ সালে বিতরণের জন্য প্রাথমিকের ৭ লাখ ৮ হাজার ২৪টি নতুন বই ফেনীতে পৌঁছেছে। জেলার ছয় উপজেলায় ৫৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ লাখ ৯৮ হাজার ৯শ ৬৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারী ‘বই উৎসব’ এ বইগুলো বিতরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নূরুল ইসলাম।
ফেনী সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাইফুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় থেকে নতুন বই বছরের প্রথম দিন বই উৎসবের মাধ্যমে পেয়ে যাবে।
ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এম কে ইমাম উদ্দিন জানান, তাঁর উপজেলায় বিতরণের জন্য প্রাক-প্রাথমিকসহ সবগুলো শ্রেণির বই বুঝে পেয়েছেন। কয়েক ধাপে বইগুলো তাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। ডিসেম্বর মাসের মাঝামাঝি নাগাদ স্কুলগুলোতে চাহিদা অনুযায়ী বই বিতরণ করা হবে।

সোনাগাজী উপজেলার ভারপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ওয়াহিদুর রহমান বলেন, তিন ধাপে সর্বশেষ গত ১৩ নভেম্বর চাহিদা অনুযায়ী সবগুলো বই বুঝে পেয়েছেন।
ফেনী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, ফেনীর ৬ উপজেলায় ২০২০ সালে নতুন বইয়ের জন্য ১ লাখ ৯৮ হাজার ৯০শ ৬৯ জন শিক্ষার্থীর চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে। বইয়ের চাহিদা অনুযায়ী ফেনীর সদর উপজেলার ১শ ৫৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৮৩ হাজার ১শ ৮ জন, দাগনভূঞা উপজেলার ১শ ২০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩১ হাজার ৬০ জন, সোনাগাজী উপজেলার ১শ ৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩১ হাজার ৪শ ৭৯ জন, ছাগলনাইয়া উপজেলার ৭৮টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৩ হাজার ৫শ ৮৮ জন, পরশুরাম উপজেলায় ৫১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৩ হাজার ৫শ ৫২ জন এবং ফুলগাজী উপজেলার ৬৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৬ হাজার ১শ ৮২ জন।
বইয়ের চাহিদার বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আরো জানান, বছরের শুরুতে বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সরেজমিন বাস্তবতার ভিত্তিতে একটি চাহিদা তৈরি করেন। চাহিদাটি সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে পাঠানো হয়। পরে উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অনলাইনে নির্দিষ্ট আবেদন ফরম পূরণ করা হয়। চাহিদা অনুযায়ী বই পাঠানো হয় প্রত্যেক উপজেলায়।

Sharing is caring!