বিশেষ প্রতিনিধি->>

ফেনীর দাগনভুইয়ার আলোচিত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফখরুল হত্যায় জড়িত মাইক্রোবাস ড্রাইভার মনির আহম্মদ রিখনকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই।গ্রেফতারের পর তাকে আদালতে হাজির করা হলে সে ঘটনার স্বীকারোক্তি মূলক ১৬৪ ধারা জবানবন্ধি দেয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মামলার তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই আসামীর জবানবন্দী শেষে সাংবাদিকের এমন তথ্য জানান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক হায়দার আলী আকন্দ জানান, ফখরুলকে হত্যার পর কাতার পালিয়ে যায় রিখন।ঘটনার দিন মাইক্রো করে লাশ টানার দায়িত্বে ছিলো। পরে বিশেষ কৌশলে কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে তাকে দেশে ফেরৎ আনা হলে গত ৪ নভেম্বর সোমবার সকালে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে অবতরণ করা মাত্র তাকে গ্রেফতার করা হয়।পরে আসামীকে মঙ্গলবার বিকালে সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ খানের আদালতে হাজির করা হলে সে ঘটনার স্বীকারোক্তি মূলক ১৬৪ ধারা জবানবন্ধি দেয়। এসময় সে হত্যার ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা দেয়।

উল্লেখ্য: ২০১৮ সালের ১৯ জানূয়ারী রাতে ফখরুলকে বন্ধুরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা মাতুভুঞা এলাকার একটি জমিতে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে নিহতের ভাই ইতালী প্রবাসী নাজিম উদ্দিন বাদী হয়ে তাদের নাম উল্লেখ করে ঘটনার ৪ দিন পর দাগনভুঞা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে।

নিহত ফখরুল একই উপজেলার আজিজ ফাজিলপুর গ্রামের আবু তাহের এর ছেলে।সে পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন।

Sharing is caring!