ফুলগাজী প্রতিনিধি->>
ফুলগাজী উপজেলার আলী আজম স্কুল অ্যান্ড কলেজের সিঁড়ির নিচ থেকে কাজী রিজওয়ান হোসেন (১২) নামে এক ছাত্রকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার সকাল নয়টার দিকে বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
রিজওয়ান উপজেলা মুন্সীরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের কাজী নুরুল আহাদের ছেলে ও মুন্সীরহাট আলী আজম স্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।
বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সকাল নয়টার দিকে বিদ্যালয়ের প্রবেশের সময় শিক্ষার্থীরা সিঁড়ির নিচে গোঙানির শব্দ শুনতে পায়। কিছু ছাত্র সিঁড়ির নিচে গিয়ে তাদেরই সহপাঠী রিজওয়ানকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় দেখতে যায়।
রিজওয়ানের বাবা কাজী নুরুল আহাদ জানান, সে বাড়ি থেকে সকাল সাড়ে আটটার দিকে বের হয়েছে। শ্রেণি কক্ষে বই রেখে সে অন্যত্র প্রাইভেট পড়ে। সকালে শিক্ষকদের মাধ্যমে ছেলে আহতের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে তাঁর ধারণা প্রতিবেশী একজনের সঙ্গে তাঁর দীর্ঘদিন ধরে জায়গা জমি নিয়ে বিরোধ চলছে। হয়তো তারাই এ ঘটনা ঘটাতে পারে।
আলী আজম স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ শাহ আলম জানান, হাসপাতালে ভর্তি থাকা রিজওয়ানের জ্ঞান ফিরলেও সে খুব ভয়ের মধ্যে আছে।
ফুলগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচও) এবিএম মোজাম্মেল হক জানান, স্কুলছাত্র রিজওয়ানের হাত ও মুখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ কুতুব উদ্দীন বলেন, ‘বিষয়টি জানার পর থানার একজন অফিসারকে হাসপাতালে তাৎক্ষণিক পাঠানো হয়। স্কুলছাত্রের পরিবার থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Sharing is caring!