সোনাগাজী প্রতিনিধি->>
সোনাগাজী উপজেলায় আট বছরের এক ছেলে শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিশুটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই কামাল উদ্দিন (৬০) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ, শিশুর পরিবার ও স্থানীয় লোকজনের তথ্যমতে, মঙ্গলবার দুপুরে ওই শিশু ধর্ষণের শিকার হলেও পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি জানেন সন্ধ্যায়। ওই দিন দুপুরে শিশুটি বাড়ির পাশের সড়কে একটি চাকা দিয়ে খেলা করছিল। এ সময় কামাল উদ্দিন তাঁকে ডেকে কাছে নিয়ে মুখ চেপে ধরে জোরপূর্বক পাশের একটি বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করেন। ঘটনাটি কাউকে না বলতে তাঁকে হুমকি দেন কামাল। সন্ধ্যায় শিশুটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে শিশুটি বিষয়টি তাঁর মাকে জানায়। এরপর ওই শিশুর অভিভাবকেরা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও এলাকার মানুষজনকে বিষয়টি জানান। তাঁরা শিশুর পরিবারকে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেন।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার কামাল উদ্দিনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে শিশুটির বাবা বলেন, তিনি থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনাটি ওই শিশুর পরিবারের কাছ থেকে শুনে তিনি থানা-পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় কামাল উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।

সোনাগাজী মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নুরুল করিম বলেন, শিশুটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বুধবার সকালে ফেনী সদর হাসপাতালে শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। পরে তাকে ফেনীর বিচারিক হাকিমের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য হাজির করা হবে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. খালেদ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কামাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। বুধবার দুপুরে তাঁকে ফেনীর বিচারিক হাকিমের আদালতে হাজির করা হবে।

এর আগে গত এক সপ্তাহে এই উপজেলার এক প্রতিবন্ধী কিশোর ও এক মাদ্রাসা ছাত্র ধর্ষণের শিকার হয়।

Sharing is caring!