image
শহর প্রতিনিধি->>
ফেনীর পেট্টোবাংলায় শারিমন আক্তার (১১) গৃহপরিচারিকাকে নিষ্ঠুর নির্যাতন চালিয়েছে গৃহকর্তী প্রিয়া। ঘটনা জানাজানি হলে শনিবার রাতে ওই গৃহকর্তীকে আটক করে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, গত এক বছর ধরে পেট্টোবাংলায় মাহী হাউজে ঠিকাদার নজরুল ইসলাম রানার বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ নেয় কুমিল্লার গোবিন্দপুরের রিপনের মেয়ে শারিমন আক্তার । এরপর থেকে নুন থেকে চুন খসলে বিভিন্ন সময় তার উপর নেমে আসে অমানবিক নির্যাতন । গত কয়েকদিন আগে তাকে গরম খুন্তি দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছ্যাকা দেয়া হয়। ঠুনকো অজুহাতে শুক্রবার রাতে শারমিনকে গৃহকর্তা নজরুল মারধর করলে আশপাশের লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে যায়। শনিবার থানা-পুলিশে খবর দিলে রাত ৮ টার দিকে তাকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এসময় গৃহকর্তী প্রিয়াকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
থানায় সাংবাদিকদের সামনে মারধরের বিষয়টি স্বীকার করলেও গৃহকর্তী প্রিয়া ‘ছ্যাকা’ দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, মাস খানেক পানি আনতে গিয়ে পড়ে গিয়ে আঘাত পায়। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন গুলো পড়ে যাওয়ায় হয়েছে। স্থানীয় মামুন নামের জনৈক এক যুবক তার স্বামীর কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। দাবীকৃত চাঁদা না দেয়ায় তারা পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
ফেনী মডেল থানার ওসি মো: মাহবুব মোর্শেদ নির্যাতিতা গৃহপরিচারিকাকে উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় নারী ও শিশু নিযর্াতন আইনে মামলা হয়েছে।

Sharing is caring!