বিশেষ প্রতিনিধি->>
সোনাগাজীতে পূর্বশত্রুতা ও আধিপাত্য বিস্তারের জের ধরে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা মো. শামীম (২২) নামে এক ছাত্রলীগ কর্মিকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঈদুল আজহার পূর্বের রাত (রোববার দিবাগত রাত) সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের চরসোনাপুর তিনবাড়িয়া দাসপাড়া গ্রামের মিয়ার দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

সে উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য ও সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের মুহুরী প্রজেক্ট সংলগ্ন চরশাহাপুর গ্রামের কৃষক আবদুল মুনাফ মিয়ার ছেলে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে স্থানীয় সন্ত্রাসী রাহাদ, শেখ আলম ও নুর আলম কে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ, এলাকাবাসী, নিহতের পরিবার ও দলীয় সূত্র জানায়, সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ইফতেখার হোসেন খোন্দকারের সাথে পূর্ব শত্রুতা ও এলাকায় আধিপাত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক সাঈদ আনোয়ারের বিরোধ চলে আসছে। ইফতেখার গ্রুপের স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা মো. শামীম ও তার বন্ধু সিএনজি অটোরিকশা যোগে তার নানার বাড়ি চরলামছিডুব্বা গ্রাম থেকে ফেরার পথে চরসোনাপুর তিনবাড়িয়া দাসপাড়া মিয়ার দোকানের সমানে পৌঁছলে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ১৫-২০জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী সিএনজি অটোরিকশার গতি রোধ করে।পরে শামীমকে নামিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে রাস্তার পাশে মুমূর্ষ অস্থায় ফেলে রাখে।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করে, সেখান থেকে রাত ২টার দিকে চট্রগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) খালেদ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান এঘটনায় ইতোমধ্যে ৩জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!