সদর প্রতিনিধি->>

ফেনী-২ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেছেন ‘ফেনী জেলাতে শুধুমাত্র সালিশ করতে পারবে জনপ্রতিনিধিরা। অন্য কেউ সালিশ করতে পারবে না। যদি কেউ সালিশ করতে যায় তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ বুধবার বিকেলে সুন্দরপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বালিগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাংসদ এমন মন্তব্য করেন।

নিজাম হাজারী বলেন, ‘দলের কর্মী যারা মাদকাসক্ত, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত, অপকর্ম করে এমন কেউ আওয়ামী লীগের কমিটিতে আসতে পারবে না। একই সাথে যারা বিভিন্ন দল ত্যাগ করে আওয়ামী লীগে এসেছে, এমন যে সব নেতারা ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃত্বে আসতে চায় তাদেরকে কোন ভাবেই দলীয় পদ দেওয়া হবে না। আওয়ামী লীগের দুর্দিনে যারা আওয়ামী লীগের হাল ধরেছে তারাই আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ পদ পাবে’।

বালিগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল হাসান কায়েস চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বিকম, সহ-সভাপতি মাস্টার আলী হায়দার, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহান আরা বেগম সুরমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাহার।

প্রধান বক্তা ছিলেন ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর হোসেন। বালিগাঁও ইউনিয়নের উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে বক্তব্য রাখেন ফেনী জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীল।এর আগে সম্মেলন উদ্বোধন করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি করিম উল্যাহ বিকম।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেছেন, ‘বালিগাঁওতে কোন দল নেই, আছে উন্নয়নের দল, শেখ হাসিনার দল, উন্নয়নের কাছে সবাই ঐক্যবদ্ধ। এখানকার কৃতি সন্তান আমার অত্যন্ত স্নেহের শুসেন শীল আমাকে বলেছে আজকে আপনার কাছে কোন দাবী করবো না। কিন্তু আমি বালিগাঁওবাসীর ভালোবাসার কাছে ঋণী হয়ে গেলাম। প্রধানমন্ত্রী প্রতিটি জেলার একটি ইউনিয়নকে উপ-শহর হিসেবে ঘোষণা করার কথা বলেছেন। আমি ফেনীর বালিগাঁওকে উপ-শহর হিসেবে যত প্রক্রিয়া আছে শেষ করে উপ-শহর প্রতিষ্ঠা করবো। বালিগাঁওয়ের জন্য ১০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দিয়ে গেলাম। এই টাকা দিয়ে যে কাজ অবশিষ্ট আছে তা করা হবে’।

ফেনী সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আবদুস শুক্কুর মানিকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মীর হোসেন দুলাল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল উদ্দিন প্রমুখ।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল আলিম, সোনাগাজী পৌর মেয়র এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জালাল আহাম্মদ হাজারী, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আশ্রাফুল আলম গিটার, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মানিক, মোশাররফ হোসেন বাদল, নুরুল ইসলাম ভুট্টো, মোশাররফ হোসেন মিলন, হারুনুর রশিদ এলএলবি, আনোয়ার আহাম্মদ মুন্সি, হারুন মজুমদার, কখম ইসহাক খোকনসহ, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নুরুল আফসার আপনসহ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ, যুব মহিলা লীগ, ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীবৃন্দ।

ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর হোসেনের সঞ্চালনায় দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে নাম উত্থাপনের আহবান জানানো হলে সভাপতি পদে ৩ জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৫টি সিভি জমা পড়ে। উপস্থিত কাউন্সিলরগণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপির সিদ্ধান্তের উপর ছেড়ে দেন।

Sharing is caring!