image

সৌরভ পাটোয়ারী, ২৫ অক্টোবর–>>
যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের মুক্তির দাবীতে শনিবার বিকেলে ফেনী জেলা যুবদলের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ গুলি ছুঁড়লে যুবদলের সভাপতি গাজী হাবিব উল্যাহ মানিকসহ ১২ যুবদল নেতা-কর্মী আহত হয়। এসময় যুবদলকর্মীদের ইটের আঘাতে দুই পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়। পরে বিক্ষুদ্ধ নেতা কর্মীরা ২০ টি সিএনজি ভাংচুর করেছে। শহরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক নাছির উদ্দিন জানান, শনিবার বিকেলে যুবদলের সভাপতি গাজী হাবিব উল্যাহ মানিকের নেতৃত্বে মিছিল বের করে যুবদল। এসময় মিছিলটি ফেনী মডেল থানার সামনে পৌঁছলে বিনা উস্কানিতে পুলিশ মিছিলে গুলি ছোঁড়ে। এতে জেলা যুবদলের সভাপতি গাজী হাবিব উল্যাহ মানিকসহ ১০ জন আহত হয়। অন্য আহতরা হচ্ছে সদর থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক কামরুল ইসলাম, যুবদলকর্মী আরিফুর রহমান, আজিমসহ ১০ জন। এর প্রতিবাদে যুবদলের বিক্ষুদ্ধকর্মীরা শহরের এসএসকে রোড,ট্রাংক রোড, সেন্টাল হাইস্কুল সামনেসহ বিভিন্ন স্থানে ২০ অটো সিএনজি অটো গাড়ি ভাঙচুর করে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়।
ফেনী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন মিস্টার জানান, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল
সহ ৮০জনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ফেনী জেলা যুবদলের বিকালে শান্তি পুর্ন মিছিল বের করে। মিছিলটি এস.এস.কে রোড় থেকে শুরু করে ট্রাংক রোড়স্থ দোয়েল চত্ত্বর অতিক্রম করলে এই অবৈধ
সরকারের পেটুয়া পুলিশ বাহিনী অতর্কিত পেছন থেকে হামলা, টিয়ার শেল নিক্ষেপ ও গুলি বর্ষন করে।
এতে ফেনী সদর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক কামরুল হাছান, আজিম, হালিম, আরিফ সহ
১০/১২ যুবদল নেতা-কর্মি গুরুতর আহত হয়।

ফেনীর সহকারী পুলিশ সার্কেল সামছুল আলম সরকার জানান, যুবদলের কর্মীদের ইটের আঘাতে দুই পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছে। এসময় পুলিশ ১৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়েছেন বলে জানান।

Sharing is caring!